আবার বিচ্ছেদ হতে চলেছে ন্যানসির?

SHARE

জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ন্যানসি ছয় বছর আগে নাজিমুজ্জামান জায়েদকে বিয়ে করেন। চলতি বছর মার্চে তাদের সংসার জীবনের ছয় বছর পূর্ণ হতে যাচ্ছে। ২০১৪ সালে তাদের সংসারে জন্ম নেয় কন্যা সন্তান আলী আফরিন নায়লা। এতদিন খুব ভালোই চলছিল তাদের সংসার। তবে ইদানিং তাদের দাম্পত্য জীবন ভালো যাচ্ছে না বলে শোনা যাচ্ছে। গত দু’মাস ধরে তারা নাকি আলাদা থাকছেন। এর সত্যতা পাওয়া যায় ন্যানসি-জায়েদের কথায়ও।

দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে ন্যানসি বলেন, ‘আমরা প্রায় দু’মাস ধরে আলাদা থাকছি। জায়েদ ওর বাসায় থাকে আর আমি আমার বাসায়। আমাদের একজনের বাড়ি থেকে অন্যজনের বাড়ির দূরত্ব ৫ কি.মি। আমার কখন কি লাগবে, স্বামীর দায়িত্ব থেকে জায়েদ তা পূরণ করে যাচ্ছে। স্বামী-স্ত্রী দু’জনের মধ্যে সুসম্পর্ক ঠিকই আছে।’

তবে কি কারণে দু’জন আলাদা থাকছেন? জানতে চাইলে ন্যানসি বলেন, ‘অনেক কারণ, তুলে ধরার মতো একটি হলো- জায়েদ আগ বাড়িয়ে ইচ্ছে প্রকাশ করে না। সবকিছু আমারই চেয়ে নিতে হয়। যেমন ধরেন কোথাও ঘুরতে যাওয়া, ছবি তোলা বা কোনো আয়োজন করা, এগুলো আমাকেই বলতে হয়। জায়েদ আগ বাড়িয়ে তা কখনোই বলে না। জয়েদ খুব ভালো মানুষ। সংসার জীবনে এখন পর্যন্ত কোনো বিষয় নিয়ে ওর সঙ্গে আমার ঝগড়া হয়নি। আমি যা বলি, তাতেই ওর রায় থাকে। কখনও কোনো কথা “না” বা “প্রতিবাদ” করে না। কেমন জানি, এগুলো ভালো লাগে না। সংসার জীবনে অনেক চাওয়া আছে, যা একজন স্বামীকে বুঝতে হয়। এ ক্ষেত্রে জায়েদ অন্যরকম।’

ন্যানসি আরও বলেন, ‘আলাদা থাকার সিদ্ধান্তটি আমার। আমি যখন কথাটি ওকে বলি, তখন জায়েদ উত্তরে মাথা নাড়িয়ে বলে “ঠিক আছে”। এটা কেন? কোনো স্ত্রী যদি তার স্বামী এ কথাটি বলে, তবে কি সে এভাবে উত্তর দেবে? অবশ্যই স্বামী এর কারণ জানতে চাইবেন। এ নিয়ে সংসারে ঝগড়া না হলেও, নিজেদের মধ্যে দফায় দফায় আলোচনা হবে। স্বামী তার স্ত্রীকে বোঝানোর চেষ্টা করবেন। কিন্তু জায়েদের মধ্যে এমন কোনো কিছুই দেখলাম না।’

কিছুদিন আগে, ন্যানসির জন্মদিনে জমি উপহার দিয়েছিলেন জায়েদ। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ন্যানসি বলেন, ‘জন্মদিন উপলক্ষে জায়েদকে আগে বলেছিলাম, আমাকে বিশেষ কিছু উপহার দিতে। বিশেষ হিসেবে জায়েদ আমাকে জমি উপহার দিয়েছে। আমি ‍কিন্তু ওকে জমি উপহার দেওয়ার জন্য বলিনি। বলার মধ্যে শুধু বলেছিলাম, উপহারটি যেন মনে রাখার মতো হয়।’

তবে কী ন্যানসি বিচ্ছেদের পথে হাঁটছেন, জানতে চাইলে ন্যানসি বলেন, ‘ছয় বছরের সংসার জীবনে আমিই তো সব চেয়ে নিলাম। এবার দেখার পালা জায়েদ কি চায়? স্বামী হিসেবে তার করণীয়গুলো সে কীভাবে ঠিক করে। আমার কোন চাওয়া নেই।’

এ বিষয়ে ন্যানসির স্বামী জায়েদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে বলেন, ‘এ বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই। ন্যানসি যা বলবে, আমি সে সিদ্ধান্তই মেনে নেব। একটা কথা না বললেই নয়, আমি খুব সাধারণ মানুষ। সাধারণভাবেই থাকতে চাই। ন্যানসি একজন সেলিব্রেটি। শুরুতে চেয়েছিলাম, ওকে আমি আমার মতো করে গুছিয়ে নেব, কিন্তু পারিনি। আমি ব্যর্থ হয়েছি।’

কেন একসঙ্গে থাকছেন না-এমন প্রশ্নের জবাবে জায়েদ বলেন, ‘ন্যানসিই চায় না, আমরা একসঙ্গে থাকি। দুই মাস আগে কোনো এক কারণে, ন্যানসি আমাকে বলে ওর বাসা থেকে বের হয়ে যেতে। স্ত্রীর এমন কথা, কোনো স্বামীর কাছেই কাম্য নয়। তাই আমি কোনো কথা বলিনি, বাসা থেকে বের হয়ে চলে এসেছি। আমার কোনো ক্ষোভ বা কিছু বলার নেই। শুধু একটাই কথা বলব, সংসার জীবনে আমি ব্যর্থ হয়েছি।’

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৪ মার্চ ঘরোয়াভাবে ন্যানসি ও নাজিমুজ্জামান জায়েদের বিয়ে হয়। জায়েদ স্থানীয় পৌরসভায় চাকরির পাশাপাশি ব্যবসার সঙ্গেও জড়িত আছেন। এর আগে, ২০০৬ সালের ২১ জানুয়ারি ন্যানসি ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন সৌরভকে। সেই বিয়েও টেকেনি তার। দাম্পত্য জীবনের ৬ বছরের মাথায় ২০১২ সালে বিচ্ছেদ হয় ন্যানসি-সৌরভের।