নড়াইলে যুবলীগ নেতার গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

SHARE

নড়াইলে যুবলীগের নেতা তরিকুল ইসলামের (২৮) গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ বুধবার সকালে উপজেলার সীতারামপুর সেতুর পাশ থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত তরিকুল ইসলাম যশোর জেলার বাঘারপাড়া উপজেলার জামদিয়া গ্রামের মিজানুর বিশ্বাসের ছেলে। তিনি জামদিয়া বাজারের একজন সার ও কীটনাশক ব্যবসায়ী এবং বাঘারপাড়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য।

নড়াইল সদর থানার উপপরিদর্শক মাসুদ রানা বলেন, পথচারীরা সেতুর পাশে একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেন। পরে ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তরিকুলের চাচা বাঘারপাড়া উপজেলার করিমপুর গ্রামের মো. ইমান আলী বলেন, গত শুক্রবার দোকান থেকে সাদাপোশাকধারী পুলিশ তাঁকে তুলে নিয়ে যায়। পরে যশোরের ডিবি পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ডিবি পুলিশ তা অস্বীকার করে। এ বিষয়ে বাঘারপাড়া থানায় জিডি করতে গেলে পুলিশ জিডি নেয়নি। তুলে নেওয়ার পাঁচ দিন পর তাঁর গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া গেল। দলীয় কোন্দলের জন্য তরিকুলকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে তাঁরা ধারণা করছেন।

বাঘারপাড়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক কামরুজ্জামান লিটন প্রথম আলোকে বলেন, তরিকুল বাঘারপাড়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য। তিনি যশোর এমএম কলেজ থেকে এমএ পাস করে রাজনীতির পাশাপাশি ব্যবসা করতেন। তাঁর বিরুদ্ধে থানায় কোনো মামলা নেই। মাদকের সঙ্গেও তাঁর কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

ডিবি পুলিশ তরিকুলকে ধরে নিয়ে বিনা কারণে ক্রসফায়ার দিয়ে হত্যা করেছে বলে দাবি করেছেন কামরুজ্জামান লিটন। একই সঙ্গে তিনি এই ঘটনার সঠিক তদন্ত ও বিচার দাবি করেন।

বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মঞ্জুরুল আলম বলেন, নিহত তরিকুলের নামে থানায় কোনো মামলা নেই। এই ঘটনায় কারা জড়িত, তা উদঘাটনের চেষ্টা চলছে।